Loading...
The Financial Express

আদালতের আদেশের কপি পেলে কিছু পোর্টাল বন্ধ হবে: তথ্যমন্ত্রী

| Updated: September 15, 2021 20:54:40


তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী হাছান মাহমুদ । ফাইল ছবি তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী হাছান মাহমুদ । ফাইল ছবি

হাই কোর্টের আদেশের লিখিত কপি পাওয়ার পর আদালতের বেঁধে দেওয়া সময়ের মধ্যেঅনুমোদনহীনকিছু অনলাইন নিউজ পোর্টাল বন্ধ করে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন, তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী হাছান মাহমুদ।

বুধবার সচিবালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে এক মতবিনিময় অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, “ভবিষ্যতে অনলাইন নিবন্ধন দিতে হবে। অনলাইন নিবন্ধন আমরা একটি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে করছি, এসব বিষয় আমরা আদালতের কাছে উপস্থাপন করব।”

হাই কোর্ট মঙ্গলবার এক আদেশে এক সপ্তাহের মধ্যে অনিবন্ধিত ও অননুমোদিত অনলাইন নিউজ পোর্টাল বন্ধের নির্দেশ দেয়। বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) ও প্রেস কাউন্সিলের চেয়ারম্যানকে তা বাস্তবায়ন করতে বলা হয়। খবর বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, “আদালতের লিখিত আদেশের কপি হাতে পাওয়ার পরপরই আদালত যে সময়সীমা নির্ধারণ করে দিয়েছে সে সময়ের মধ্যে কিছু অনলাইন বন্ধ করে দেওয়া হবে।”

ইতোমধ্যে অনেকগুলো অনলাইন পোর্টাল বন্ধ করা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, “আদালতের নির্দেশ অনলাইন বন্ধ করার প্রক্রিয়ার ক্ষেত্রে আমাদের জন্য সহায়ক। আমরা কিছু অনলাইন বন্ধ করব, একইসঙ্গে আমরা আদালতের নজরে আনব এটি একটি চলমান প্রক্রিয়া।

যাচাই-বাছাই ছাড়াই যদি সবগুলোকে একসঙ্গে বন্ধ করে দেওয়া হয় সেটি কত অতটুকু সমীচীন সেটাও ভাববার বিষয়, সেটিও আমরা আদালতের নজরে আনব।”

তথ্যমন্ত্রী জানান, এখন নিবন্ধন রয়েছে এমন নিউজ পোর্টাল কিংবা পত্রপত্রিকা ছাড়া ভবিষ্যতে আর নতুন পোর্টাল কিংবা পত্রিকা বের হবে না এমন কোনো নিয়ম নেই।

যেসব অনলাইন পোর্টাল সত্যিকার অর্থে গণমাধ্যম হিসেবে কাজ করে না, বরং নিজস্ব বিশেষ উদ্দেশ্য নিয়ে কাজ করে এবং ব্যাঙের ছাতার মতো এত অনলাইন আসলে দেশে প্রয়োজন নেই।”

নিউজ পোর্টাল খুলেনানা অপরাধমূলক কাজকরা হচ্ছে মন্তব্য করে হাছান মাহমুদ বলেন, “যার যেমন ইচ্ছা একটা অনলাইন খুলে বসবে এবং সেটি নিয়ে যেমন ইচ্ছা তেমন সংবাদ পরিবেশন করবে, মিথ্যা সংবাদ পরিবেশন করবে, গুজব রটানোর কাজে ব্যস্ত হবে, অন্যের চরিত্র হনন করবে, ব্যবসায়িক উদ্দেশ্যে পরিচালিত হবে, কোনো ব্যবসায়ীর স্বার্থ সংরক্ষণের জন্য সেখানে লেখালেখি হবে, এটি কোনোভাবেই সমীচীন নয়। সেক্ষেত্রে এ আদেশ অবশ্যই সহায়ক আদেশ।”

অনলাইন নিউজ পোর্টালের পাশাপাশি আইপিটিভি নিবন্ধন দেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে জানিয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, “ব্যাঙের ছাতার মতো আইপিটিভি করার যে সুযোগ রয়েছে এটা কোনোভাবেই সমীচীন নয়।

যে সমস্ত আইপিটিভি বিশেষ উদ্দেশ্য নিয়ে পরিচালিত হচ্ছে এবং নিজেকে টেলিভিশন চ্যানেলের মতো জাহির করছে, খুব দ্রুত তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেব।”

এখনও কোনো আইপিটিভির নিবন্ধন দেওয়া হয়নি জানিয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, “আমরা আশা করেছিলাম গত মাস থেকে দিতে পারব। কিন্তু তদন্ত রিপোর্ট না পাওয়ায় আমরা দিতে পারিনি।”

Share if you like

Filter By Topic