Loading...
The Financial Express

টিকার মেধাস্বত্ত্বে ছাড়ের প্রস্তাবে জার্মানির বিরোধিতা

| Updated: May 07, 2021 16:55:34


টিকার মেধাস্বত্ত্বে ছাড়ের প্রস্তাবে জার্মানির বিরোধিতা

কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনের মেধাস্বত্ত্বে ছাড়ে যুক্তরাষ্ট্র সমর্থিত প্রস্তাবের বিরোধিতা করে জার্মানি বলেছে, মেধাস্বত্ত্ব টিকার উৎপাদন বৃদ্ধির ক্ষেত্রে বাধা নয়।

“মেধাস্বত্ত্বের সংরক্ষণ নতুন কিছু সৃষ্টির একটি উৎস এবং এমনটাই থাকা উচিত,” বৃহস্পতিবার বলেছে দেশটির সরকার।

জার্মানির এ অবস্থানের আগে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) বলেছিল, তারা কোভিড টিকার মেধাস্বত্ত্ব উন্মুক্ত করে দেওয়ার প্রস্তাব নিয়ে আলোচনায় রাজি।

জোটের একাধিক সদস্য রাষ্ট্র প্রস্তাবটিতে পূর্ণ সমর্থনও দিয়েছে  বলে  বিবিসির বরাত দিয়ে জানিয়েছে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

মেধাস্বত্ত উন্মুক্ত হলে টিকার উৎপাদন ব্যাপকভাবে বাড়বে ও দরিদ্র দেশগুলোকে সুলভ মূল্যে জীবন রক্ষাকারী ভ্যাকসিন সরবরাহ করা যাবে বলে দাবি সমর্থকদের।

অন্যদিকে প্রস্তাবটির বিরোধীরা বলছে, মেধাস্বত্ত্বে ছাড় দিলেও কাঙ্ক্ষিত ফল পাওয়া যাবে না। তাদের মতে, ভ্যাকসিন উৎপাদনের ক্ষেত্রে বাধা হচ্ছে উৎপাদন সক্ষমতা ও এর মান ধরে রাখা, মেধাস্বত্ত্ব নয়।

ওষুধ নির্মাতা কোম্পানিগুলোর এ আপত্তির সঙ্গে গলা মিলিয়েছে জার্মানিও। উৎপাদন বাড়াতে টিকা নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের অংশীদারদের সঙ্গে কাজ করছে বলেও জানিয়েছে দেশটি।

ইইউ’র সবচেয়ে বড় অর্থনৈতিক শক্তি জার্মানির কোম্পানি বায়োএনটেকের বানানো কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন বিশ্বজুড়ে বহুল ব্যবহৃত টিকাগুলোর মধ্যে অন্যতম।

টিকার মেধাস্বত্ত্ব উন্মুক্ত করে দেওয়ার ধারণাটির প্রস্তাবক ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকা; দেশ দু’টি বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থায় ৬০টির মতো দেশের একটি গ্রুপকে নেতৃত্ব দিচ্ছে। এ দেশগুলো কয়েক মাস ধরেই কোভিড ভ্যাকসিনের মেধাস্বত্ত্ব সাময়িক সময়ের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে আসছিল।

যুক্তরাষ্ট্রের আগের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের প্রশাসন, যুক্তরাজ্য ও ইইউ এর তীব্র বিরোধিতা করলেও জো বাইডেনের সমর্থন পাওয়ার পর প্রস্তাবটি নিয়ে বিশ্বজুড়ে ফের আলোচনা শুরু হয়।

প্রস্তাবটির ব্যাপারে জার্মানির বিরোধিতার আগেই ইউরোপিয়ান কমিশনের প্রেসিডেন্ট উরসুলা ফন ডেয়ার লাইয়েন বলেন, মেধাস্বত্ত্ব সংরক্ষণে ছাড় দেওয়ার প্রস্তাব নিয়ে ২৭ দেশের জোট ‘আলোচনায় প্রস্তুত’।

ফন ডেয়ার লাইয়েন কিছুদিন আগেও মেধাস্বত্ত্ব উন্মুক্ত করে দেওয়ার বিরোধী ছিলেন। কয়েক সপ্তাহ আগে নিউ ইয়র্ক টাইমসকে বলেছিলেন, তিনি ‘প্যাটেন্ট ছেড়ে দেওয়ার পক্ষে নন’।

বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার (ডব্লিউটিও) প্রধান এনগোজি ওকোনজো-ইওয়েলা কোভিড টিকার মেধাস্বত্ত্ব নিয়ে বাইডেন প্রশাসনের অবস্থানকে স্বাগত জানিয়েছেন। টিকার উৎপাদন নিয়ে সদস্য রাষ্ট্রগুলোর একটি ‘বাস্তবধর্মী সমঝোতায়’ পৌঁছানো উচিত বলেও মন্তব্য করেন এ নারী।

“এখন যে বৈষম্য চলছে তা ঠিক নয়,” বলেছেন তিনি।

Share if you like

Filter By Topic