Loading...
The Financial Express

ধর্মের নামে জঙ্গিবাদ ঠেকাতে এগিয়ে আসার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

| Updated: June 10, 2021 17:23:15


ধর্মের নামে জঙ্গিবাদ ঠেকাতে এগিয়ে আসার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

ধর্মের নামে জঙ্গিবাদ প্রতিহত করতে আলেম ওলামা, ধর্মপ্রাণ মুসলমান ও অভিভাবকদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বৃহস্পতিবার গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে দেশের বিভিন্ন জেলা-উপজেলায় ৫০টি মডেল মসজিদ ও ইসলামী সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যুক্ত হয়ে তিনি এ বিষয়ে কথা বলেন। খবর বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, “আমরা মুসলিম অধ্যুষিত দেশ। এখানে ইসলামের মূল্যবোধ ও চর্চা যেন ভালোভাবে হয়। ইসলামের সংস্কৃতির বিকাশ যাতে ভালোমত হয়। ইসলামের মর্মবাণী যেন মানুষের কাছে পৌঁছায়।

“আমরা দেখেছি এই ধর্মের নাম নিয়ে কীভাবে জঙ্গিবাদ সৃষ্টি করা হয়েছে। কিছু লোক, আমাদের দেশে না শুধু, সারা বিশ্বেই দেখেছি… ধর্মের নামে মানুষ খুন করা। মানুষকে খুন করলেই নাকি বেহেস্তে চলে যাবে। এখানে আমার প্রশ্ন, যারা এতদিন মানুষ খুন করেছেন, তারা কে কে বেহেস্তে গেছেন, সেটা কি কেউ বলতে পারবে? বলতে পারবে না।”

সরকারপ্রধান বলেন, “সবচেয়ে সর্বনাশ করে গেছে পবিত্র ইসলাম ধর্মের, যে ধর্ম শান্তির ধর্ম। যে ধর্ম মানুষকে অধিকার দিয়ে গেছে। আমি তো মনে করি, সারা বিশ্বের শ্রেষ্ঠ ধর্ম হলো ইসলাম ধর্ম। কিন্তু দুর্ভাগ্য আমাদের, কিছু লোক জঙ্গিবাদ তৈরি করে, মানুষ হত্যা করে, বোমা মেরে, খুন-খারাবি করে আমাদের এই পবিত্র ধর্মের নামে বদনাম সৃষ্টি করেছে। যেটা আমাদের ধর্মের পবিত্রতাকেই কেবল নষ্ট করছে না, এর ইমেজটাও নষ্ট হচ্ছে সারা বিশ্বে।”

বিশ্বে কোথাও জঙ্গিবাদ হলেই যেভাবে ‘ইসলামিস্ট জঙ্গি’ বলা হয়, বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সম্মেলনে তার প্রতিবাদ করার কথা অনুষ্ঠানে তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী।

তিনি বলেন, “মুষ্টিমেয় মানুষের জন্য একটা ধর্মকে এভাবে কখনো অপরাধী করা যায় না। আমি আশা করি এই জঙ্গিবাদ বা সন্ত্রাসবাদের সাথে যারা জড়িত, আমাদের ওলামারা আছেন, অভিভাবক, শিক্ষক রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ সকলকে আহ্বান জানাব, এই পথ সর্বনাশা পথ।”

যুবসমাজকে সচেতন হওয়ার আহ্বান জানিয়ে সরকারপ্রধান বলেন, “এই পথ থেকে আমাদের যুবসমাজ যেন দূরে থাকে, এজন্য আমাদের সকলকে প্রচেষ্টা চালাতে হবে। ধর্মচর্চা করতে হলে আল্লাহর উপর বিশ্বাস রাখতে হবে, নিজের উপর বিশ্বাস রাখতে হবে, মানুষের কল্যাণ করতে হবে। মানুষের অকল্যাণ করে, একটা পরিবারকে ধ্বংস করে কেউ বেহেস্তে যেতে পারবে না।”

দেশের প্রতিটি জেলা ও উপজেলা শহরে একটি করে মোট ৫৬০টি মডেল মসজিদ ও ইসলামী সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মাণের যে প্রকল্প সরকার হাতে নিয়েছে, মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রথম পর্যায়ে তার ৫০টি মসজিদের উদ্বোধন করা হয় এ অনুষ্ঠানে।

শেখ হাসিনা বলেন, “ইসলামের প্রচার ও প্রসারে ভূমিকা রাখার সঙ্গে সঙ্গে সন্ত্রাস ও নারীর প্রতি সহিংসতা রোধ সম্পর্কে জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে এসব মসজিদ ভূমিকা রাখবে।”

প্রকল্প পরিচালক মো. নজিবুর রহমান বলেন, এ পর্যন্ত প্রকল্পের মোট কাজের ৩৬ শতাংশ অগ্রগতি হয়েছে। আগামী অর্থবছরের মধ্যে আরো ১০০ মডেল মসজিদ চালু করা যাবে। আগামী দুই বছরের মধ্যে ৫৬০টি মডেল মসজিদের সবগুলোর নির্মাণ কাজ শেষ হয়ে যাবে বলে তারা আশা করছেন।

Share if you like

Filter By Topic