Loading...
The Financial Express

দশ বছরেও হল না চট্টগ্রামের নতুন নগর ভবনের নির্মাণকাজ

| Updated: March 05, 2021 14:46:17


প্রতীকী ছবি প্রতীকী ছবি

এক দশকের মধ্যে তিনটি সিটি করপোরেশন নির্বাচন হওয়া সত্ত্বেও চট্টগ্রামের নতুন নগর ভবনের নির্মাণকাজ শেষ হয়নি। এর মধ্যে, সর্বশেষ নির্বাচনটি অনুষ্ঠিত হয়েছে এ বছরের ৭ জানুয়ারি। এর ফলে, কর্পোরেশনের নবনির্বাচিত মেয়র ও অন্য কর্মকর্তাদের নানা অসুবিধা সয়েটাইগার পাসের অস্থায়ী সিটি কর্পোরেশন অফিসে কাজ চালিয়ে যেতে হচ্ছে।

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রয়াত মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী ২০১১ সালে নতুন নগর ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। কিন্তু কর্পোরেশনের পরবর্তী মেয়র নির্বাচনে তিনি বিজয়ী হতে পারেননি। সেবারের নির্বাচনে বিজয়ী এম মঞ্জুর আলম মহিউদ্দিনের সেই ‘স্বপের প্রকল্প’ বাস্তবায়নে কোনো উদ্যোগ নেননি।

পরবর্তীতে, মেয়র আ জ ম নাসির উদ্দীনের সময়, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের এক সাধারণ সভায় ২০২ কোটি ২৬ লাখ টাকা ব্যয়ে নতুন নগর ভবনের নির্মাণকাজ শুরুর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ২০১৯ সালের ২৯ মার্চ অনুষ্ঠিত সভাটি ছিল কর্পোরেশনের ৪৪তম সাধারণ সভা। কিন্তু ২০২০ সালে কোভিড মহামারীর অপ্রত্যাশিত প্রকোপের ফলে নগর ভবনের অবকাঠামোগত নির্মাণকাজে কোনো ধরনের অগ্রগতি সম্ভব হয়নি।

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের কর্মকর্তারা বলেছেন, নগর ভবন নির্মাণ একটি বিশাল প্রকল্প, কোভিড-১৯ এর প্রাদুর্ভাবের ফলে এটির কাজ স্থগিত রয়েছে যা পুনরায় শুরু করা যায়নি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, “আমরা মনে করি, নগর ভবনের নির্মাণকাজ শেষ হলে নগরবাসী উন্নততর সেবা পাবেন।”

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের সর্বশেষ প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন জানান, “ছ’মাস আগেই আমি দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি নিয়েছি। সময়ের অভাবে নতুন নগর ভবনের নির্মাণকাজ শেষ করার উদ্যোগ নিতে পারিনি। আশা করছি, নবনির্বাচিত মেয়র রেজাউল করিম চৌধুরী এ বিষয়ে উপযুক্ত পদক্ষেপ নেবেন।“

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের সর্বশেষ নির্বাচনে বিজয়ী মেয়র রেজাউল করিম চৌধুরী এ প্রসঙ্গে বললেন, “এটা খুবই দুর্ভাগ্যজনক যে, নতুন নগর ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের পর এক দশক পার হয়ে গেলেও কর্পোরেশন এর নির্মাণকাজ শেষ করতে পারেনি। এটিআমাদের নেতা এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর স্বপ্ন ছিল, তাই আর দেরি না করে আমি ভবনটির নির্মাণকাজ শেষ করব। দায়িত্বভার নেবার পর যত দ্রুত সম্ভব কাজ শুরু করে দেব।“

বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, ২৩ তলাবিশিষ্ট নতুন নগর ভবনটি নির্মিত হবে ৩৩,৯৫৫ বর্গফুটভূমির উপর এবং এজন্য প্রায় ২০২ কোটি ২৬ লাখ টাকা খরচ হবে। ভবনে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সংযোগ ও সব ধরনের আধুনিক সুযোগ-সুবিধা থাকবে।

[email protected]

Read the English version of the report: 10 years not enough to complete new Chattogram Nagar Bhaban

Share if you like

-->