Bangla
23 days ago

বাঙালির সাজে টিপের সেকাল-একাল

Published :

Updated :

শাড়ি ,চুড়ি,কাজল যেমন বাঙালি নারীর সাজ, তেমনি সাজসজ্জা শেষে একটা টিপ না হলে যেন সাজটা পূরর্ণতাই পায় না। টিপের সাথে নান্দনিকতা সমানভাবে জড়িত।নারীর সাজকে নান্দনিক করে তোলে টিপ। টিপকে বরাবরই সাজসজ্জার শেষ অনুষঙ্গ হিসাবে ব্যবহার করতেন নারীরা; বাঙালির অঙ্গসজ্জার এক বিশেষ অংশ জুড়ে রয়েছে এটি।

ভারতীয় উপমহাদেশে নারীদের সামাজিক অবস্থান বা শ্রেণী বোঝাতে টিপ এর ব্যাবহার করা হতো।বর্তমানে যুগের সাথে তাল মিলিয়ে এই অঙ্গসজ্জার বস্তুটির ও পরিবর্তন ঘটেছে বিভিন্নভাবে। টিপের মধ্যেও এসেছে আধুনিকতার নানা ছোঁয়া। মানুষের রুচির পরিবর্তনের সাথে তাল মিলিয়ে বর্তমানে টিপেও এসেছে নতুনত্ব। আগেকার সময়ের আঙ্গুলে ছোঁয়ানো তিলক থেকে এখন তা বিভিন্ন ডিজাইন, আধুনিকতা, হাতে আঁকা বিভিন্ন নকশাতে পরিনত হয়েছে।

জিয়াউল হক তাঁর ‘ইতিহাসের অলিগলি’ নামের বইয়ে টিপ প্রসঙ্গে লিখেছেন, ”এই রীতি চালু হয়েছে প্রায় ৯৫০০ থেকে ১১৫০০ বছর আগে থেকে, যাকে বাল্মীকি যুগ বলে বর্ণনা করা হয়।"

"ব্রাহ্মণরা উচ্চ শ্রেণির, তারা ঈশ্বরের অতি নিকটজন, পূত-পবিত্র। পবিত্রতার প্রতীক হিসাবে তারা কপালে সাদা তিলক (চন্দন তিলক) দিত। ক্ষৈত্রিয় হলো যোদ্ধা শ্রেণি, তাদেরকে বীর হিসাবে গণ্য করা হতো। ক্ষিপ্ততা, হিংস্রতা ও সাহসের প্রতীক হিসাবে তারা কপালে লাল টিপ দিত। বৈশ্য শ্রেণির লোকজন হলো ব্যবসায়ী। এরা কপালে হলুদ রঙের টিপ ব্যবহার করতো। আর সমাজের সবচেয়ে নিচু লোকজন হলো শূদ্ররা। তাদের জন্য বরাদ্দ ছিল কালো রঙের টিপ।”

কিন্তু যুগের সাথে তাল মিলিয়ে এই টিপ সৌন্দর্য চর্চার একটি অনন্য উপকরণে পরিনত হয়েছে। হাতে আঁকা টিপ তার অনন্য উদাহরণ। সুন্দর করে আঁকার দক্ষতাই আলপনা টিপ বা হাতে আঁকা টিপের প্রধান উপকরণ। টিপের ওপর হাতে আঁকা বিভিন্ন আল্পনা, নকশাই এ টিপকে করেছে সবথেকে আলাদা এবং অনন্য। রং তুলির আঁচরে নকশা করা এ টিপগুলোর রঙিন আভা অঙ্গসাজে দেয় পূর্ণতা।

তাছাড়া টিপের ওপর বিভিন্ন উপকরণ দিয়ে কারুকার্য করাতে দেখা যাচ্ছে এবং এর জনপ্রিয়তাও বেশি। ফুল, পাখি, লতাপাতা, কলকা, জ্যামিতিক ডিজাইন, বিভিন্ন নকশা বা আলপনা দেখা যাচ্ছে টিপের গায়ে। যেকোনো নকশাই টিপের ওপর সুন্দর ভাবে ফুটিয়ে তুলছেন শিল্পীরা। হাতে আঁকা আলপনাময় টিপ দিয়ে কাজ করছে বিভিন্ন অনলাইন ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান। বর্তমানে বেশিরভাগ দোকানেও তা পাওয়া যায়।

সাধারণ গোল টিপ সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয় যা সবকিছুর সাথে মানিয়ে যায় এবং সবার পছন্দের শীর্ষে। কালো ছোট টিপ নারীদের দৈনন্দিন ব্যাবহার করতে দেখা যায়। এ ধরনের টিপ হতে পারে একরঙা অথবা কয়েকটি রঙের মিশ্রণে।

আবার এর ওপর একটুখানি ঝিলিকের জন্য লাগানো হচ্ছে পাথর। যেকোনো পোশাকের সাথে রং মিলিয়ে এ ধরনের টিপ ব্যাবহার করা যায়, তা বেশ মানিয়ে যায়।

ভারতের মহারাষ্ট্রে প্রচলিত একপ্রকার টিপের নাম 'চন্দ্রাকোর'। অর্ধ চাঁদের মতো আকার। বেশিরভাগ কালো বা লাল রঙের হয় এই টিপ। তবে বর্তমানে অন্যান্য রঙেও পাওয়া যায় এই টিপ। বর্তমান যুগে মহারাষ্ট্রের এই ’চন্দ্রকোর’ সকলের মাঝে বেশ জনপ্রিয়।

টিপ একজন বাঙালি নারীর সাজে পরিপূর্ণতা আনে। শাড়ির সাথে যেমন টিপ অপরিহার্য, তেমনি সেলোয়ার কামিজের সাথেও মানিয়ে যায়। আবার এখন অনেক বাঙালিরা পাশ্চাত্য পোশাকের সাথেও টিপ পরছে, ঘটছে আধুনিক ফ্যাশন আর ঐতিহ্যের ফিউশন।

[email protected]

Share this news